default-image

লক্ষ্মীপুরে জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সভায় দলীয় অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সদস্য ও লক্ষ্মীপুর-২ (রায়পুর) আসনের মনোনয়নপ্রত্যাশী শেখ ফয়জুল্লাহ শিপনসহ উভয় পক্ষের কমপক্ষে পাঁচজন আহত হয়েছেন।

আজ শনিবার বিকেলে জেলা শহরের ওয়েলকাম রেস্তোরাঁয় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ওই রেস্তোরাঁর কাচ ভাঙচুর করা হয়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনলে যথারীতি সভা চলে। আহত ব্যক্তিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, জেলা জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সভা উপলক্ষে চট্টগ্রাম বিভাগীয় নেতারা দুপুরে স্থানীয় ওয়েলকাম রেস্তোরাঁয় সমবেত হন। কেন্দ্রীয় নেতাদের উপস্থিতিতে কেন্দ্রীয় সদস্য শিপনের অনুসারীরা সভাস্থলে ঢুকতে যান। এ সময় জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক ও লক্ষ্মীপুর-২ আসনের মনোনয়নপ্রত্যাশী এম আর মাসুদের সমর্থকেরা তাঁদের ধাওয়া করেন। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এতে শিপনসহ উভয় পক্ষের পাঁচজন আহত হন।

অনেক নেতাকে অন্যায়ভাবে সভাস্থলে ঢুকতে দেয়নি মাসুদের অনুসারীরা। তার বাহিনী দিয়ে পরিকল্পিতভাবে আমাদের ওপরে হামলা করেছে।
শেখ ফয়জুল্লাহ শিপন, হামলার শিকার মনোনয়নপ্রত্যাশী
বিজ্ঞাপন

এ সময় উপস্থিত ছিলেন দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, আলমগীর শিকদার, নাজমা রহমান এমপি, ইলিয়াছ আহমদ, জেলা শাখার সদস্যসচিব মো. মাহমুদুর রহমান প্রমুখ।

জেলা আহ্বায়ক এম আর মাসুদ বলেন, ‘বহিরাগতরা এসে আমাদের সভাস্থলে হামলা চালায়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।’

হামলার শিকার শেখ ফয়জুল্লাহ শিপন বলেন, ‘অনেক নেতাকে অন্যায়ভাবে সভাস্থলে ঢুকতে দেয়নি মাসুদের অনুসারীরা। তার বাহিনী দিয়ে পরিকল্পিতভাবে আমাদের ওপরে হামলা করেছে।’

লক্ষ্মীপুর সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শিপন বড়ুয়া জানান, অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে। তিনি এখনো কোনো অভিযোগ পাননি। অভিযোগ পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন