default-image

ঢাকা-বরিশাল নৌপথে চলাচলরত এমভি পারাবত-১১ নামে একটি লঞ্চের কেবিনে পড়ে ছিল অজ্ঞাতপরিচয় এক নারীর লাশ। সোমবার সকালে বরিশাল নদীবন্দরে নোঙর করা ওই লঞ্চটির তৃতীয় তলার ৩৯১ নম্বর কেবিন থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। লাশ উদ্ধার হওয়া ওই নারীর বয়স ৩৫ থেকে ৪০ বছর হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সোমবার সকালে বরিশাল সদর নৌ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, রোববার রাতে পারাবত-১১ লঞ্চটি ঢাকার সদরঘাট থেকে যাত্রী নিয়ে বরিশালের উদ্দেশে রওনা দেয়। সোমবার ভোরে বরিশাল নদীবন্দরে লঞ্চটি নোঙর করে। যাত্রীরা লঞ্চ থেকে নেমে যায়। পরে লঞ্চটির কর্মীরা কেবিন পরিষ্কার করতে গিয়ে ৩৯১ নম্বর কেবিনে নারীর লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। তাৎক্ষণিকভাবে ওই নারীর পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। কারণ কেবিনটি একজন পুরুষের নামে নেওয়া ছিল।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানায়, কেবিনের টিকিটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, মোবাইল নম্বরে ফোন দেওয়া হলে সেটি কুমিল্লার লাকসামে অবস্থানরত এক ব্যক্তি রিসিভ করেন। ফলে ধারণা করা হচ্ছে ভুয়া মোবাইল নম্বর দিয়ে কেবিনটি বুকিং নেওয়া হয়েছিল। সুরতহালে প্রাথমিকভাবে তেমন কিছু পাওয়া যায়নি। তবে দরজা খোলা থাকায় প্রাথমিকভাবে সন্দেহ করা হচ্ছে ওই নারীর সঙ্গে অন্য কেউ ছিলেন। তাই সেটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। লাশটি কোতোয়ালি থানা-পুলিশের জিম্মায় রাখা হয়েছে। লাশের ময়নাতদন্ত করা হবে।

মন্তব্য পড়ুন 0