বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সভায় ডিজেলচালিত যানবাহনে লাল স্টিকার ও সিএনজিচালিত যানবাহনে সবুজ স্টিকার লাগিয়ে সেগুলো চিহ্নিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ ছাড়া চট্টগ্রাম নগর ও জেলার বিভিন্ন পথে চলাচলকারী যানবাহনের জন্য সরকারের নির্ধারিত ভাড়ার তালিকা টাঙিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

এই তালিকা যানবাহন, বাসস্ট্যান্ড ও দৃশ্যমান কোনো স্থানে লাগাতে নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর। এ ছাড়া অতিরিক্ত ভাড়া আদায়কারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে এ সভায়।

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের মহাসচিব গোলাম রসুল বলেন, ‘গ্যাসচালিত গাড়ি চিহ্নিত করতে সবুজ স্টিকার ও ডিজেলচালিত যানবাহনে লাল স্টিকার লাগিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তা শনিবারের মধ্যে বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া ভাড়ার তালিকা আমরা বিভিন্ন জায়গায় লাগানোর ব্যবস্থা করছি। কেউ তালিকার বাইরে ভাড়া নিলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এদিকে আজ নগরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগে ১৯টি মামলা হয়েছে। এর মধ্যে সিএনজিচালিত যানবাহনগুলো বেশি ভাড়া আদায় করছিল বলে জানা গেছে। বিআরটিএর দুই ম্যাজিস্ট্রেট শাহরিয়ার মোক্তার ও একিমিত্র চাকমা বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

জানতে চাইলে বিআরটিএর সহকারী পরিচালক মো. তৌহিদুল হোসেন বলেন, ‘অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গ্যাসচালিত ও ডিজেলচালিত গাড়িতে স্টিকার লেগে গেলে বাড়তি ভাড়া আদায়ের সমস্যা আস্তে আস্তে কেটে যাবে আশা করি। আমরা পুনর্নির্ধারিত ভাড়ার তালিকা দিয়ে দিয়েছি।’


বিআরটিএ নির্ধারিত ভাড়ার তালিকা
ভাড়ার তালিকায় দেখা যায়, ১ নম্বর রুটে মিনিবাসের ভাড়া কর্ণফুলী সেতু থেকে চকবাজার হয়ে নিউমার্কেট পর্যন্ত ২১ টাকা। ২ নম্বর রুটে কালুরঘাট থেকে নিউমার্কেট ২৯ টাকা, ৪ নম্বর রুটে নিউমার্কটে থেকে ভাটিয়ারী ৩১ টাকা, ৫ নম্বর রুটে নিউমার্কেট থেকে পতেঙ্গা ৩৮ টাকা, ৭ নম্বর রুটে কোতোয়ালি থেকে ভাটিয়ারী ৩৩ টাকা, ৮ নম্বর রুটে নিউমার্কেট থেকে অক্সিজেন ১৬ টাকা, ১০ নম্বর রুটে কালুরঘাট থেকে সি বিচ ৪১ টাকা, ১১ নম্বর রুটে ভাটিয়ারী থেকে সি বিচ ৪৭ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। একই রুটে বড় বাসের ক্ষেত্রে ১ থেকে ২ টাকা বেশি ভাড়া নির্ধারণ করা হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন