বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ব্যবসায়ীরা বলছেন, অগ্নিকাণ্ডে তাঁদের প্রায় দুই কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত একটি ইলেকট্রনিক পণ্যের দোকানের মালিক স্বপন মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, ঈদের তিন দিন আগে ঢাকা থেকে ২৮ লাখ টাকার ইলেকট্রনিক পণ্য কিনে আনেন তিনি। এ ছাড়া দোকানে বিভিন্ন পণ্য দিয়ে ভরা ছিল। শুক্রবার সকালে আগুন লাগার খবর পেয়ে দৌড়ে এসে দেখেন, পুরো দোকান পুড়ে গেছে। সীমান্ত মেডিকেলের মালিক মহসীন আলী বলেন, তাঁর দোকানে প্রায় ৩০ লাখ টাকার ওষুধ ছিল। আগুনে সব পুড়ে গেছে।

ফায়ার সার্ভিসের শেরপুর কার্যালয়ের কর্মকর্তা এ এস এম মহসীন প্রথম আলোকে বলেন, বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত। তবে কার দোকান থেকে সূত্রপাত, তা জানা সম্ভব হয়নি। প্রায় দেড় ঘণ্টা চেষ্টা করে তাঁরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহনাজ ফেরদৌস ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। প্রথম আলোকে তিনি বলেন, অগ্নিকাণ্ডে ক্ষয়ক্ষতির প্রকৃত পরিমাণ নিরূপণে কাজ চলছে। ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সরকারি নিয়ম অনুযায়ী ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন