বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সোনাই তখন বিষের বোতল নিয়ে যায় দেওয়ান ভাবনার কাছে। বিনিময়ে দেওয়ান ভাবনা মাধবকে ছেড়ে দিয়ে ঘরে গিয়ে দেখেন, পড়ে আছে সোনাইয়ের লাশ। মুক্তি পেয়ে মাধব সোনাইয়ের খোঁজে ছুটে বেড়ায়। দেখে, সোনাই তাকে ডাকছে। কিন্তু ধরতে গেলেই আলোয় মিলিয়ে যাচ্ছে সোনাই। একপর্যায়ে নদীর ঘাটে মাধব বসে থাকে।

নেপথ্যে সংগীত বেজে ওঠে ‘দিওয়ানা সে হইলো আমার পরথম যৌবনরে/ ফুল হইয়া ফুটিতাম বন্ধুরে/ সোনাইয়ে মাধবের সাথে দেখা হইলো আখিরাতে/ এই না নদীর বাঁকে, সেই নদীটি আইজো বয়, কুলে মাধব বইসা রয়/ আইজও মাধব সোনাইরে ডাকে...।’

কাহিনিতে দিনেন্দ্র চৌধুরীর সংগীত পরিচালনায় হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, মানবেন্দ্র মুখোপাধ্যায়, মৃণাল চক্রবর্তী, জটিলেশ্বর মুখোপাধ্যায়, সুশীল মল্লিক, অংশুমান রায়, অশোক রায়, কমল গুপ্ত, সুমিত্রা সেন, ললিতা ধর চৌধুরী, বনশ্রী সেনগুপ্ত, মীনা মুখোপাধ্যায়সহ আরও অনেকের গাওয়া গান ব্যবহৃত হয়েছে।

পালায় মাধব চরিত্রে অভিনয় করেন মেহেদী হাসান। দেওয়ান ভাবনা হয়েছিলেন আবু হেনা জুয়েল। আর সোনাই চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকদের প্রশংসা কুড়ান সুমাইয়া ইসলাম। এ ছাড়া নৃত্যদলে ছিলেন নূরজাহান বন্যা, সুরাইয়া ইসলাম, অর্নি, অথৈ, বৃষ্টি, রাজন্যা ও জবা। গায়েনদের মধ্যে ছিলেন রিংকু, পার্থ, সানজিদ, জিহাদ প্রমুখ।

পালা শেষে অনুভূতির কথা জানান রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের অধ্যাপক রহমান রাজু, নাট্যনির্মাতা আশরাফি মিঠু, পবা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ওয়াজেদ আলী খান। তাঁরা বলেন, ‘মৈমনসিংহ গীতিকা’ যাত্রা এবং কীর্তনের আঙ্গিকে করা হয়। পুরো পরিবেশনা ছিল উপভোগ্য। ‘সোনাই মাধব’–এর কাহিনি সংস্কৃতির শিকড়ের গল্প।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন