বিজ্ঞাপন

মারা যাওয়া ওই যুবকের নাম ইমাম হোসেন দুলাল (৩৫)। তিনি একই ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের হাতিলোটা গ্রামের বাসিন্দা। তিনি দুই ছেলে ও এক মেয়ের বাবা।

বাড়বকুণ্ড ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য জহিরুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, ইমাম হোসেনের শ্বশুরবাড়িতে ঘর মেরামতের কাজ চলছিল। সকালে ঘরের মিস্ত্রিরা নাশতা খেতে দোকানে যান। এ ফাঁকে ইমাম হোসেন ড্রিল মেশিন দিয়ে ঘরের একটি স্থানে ছিদ্র করার চেষ্টা করেন। এ সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান।

সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক বলেন, এ ঘটনায় সীতাকুণ্ড থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন