বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

উপজেলার সিন্দাগড়, শাশোর ও দিহানগর গ্রাম নিয়ে ৪ নম্বর ওয়ার্ড গঠিত। আজ বৃহস্পতিবার সকালে সিন্দাগড় গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে, ওয়ার্ডের ভোটারদের মধ্যে শালা-দুলাভাইকে নিয়ে বিভিন্ন গান প্রচারিত হচ্ছে। ভোটারদের মুখে শোনা যাচ্ছে, ‘আমি সবার বোন জামাই-দুলাভাই, অমুক মার্কায় ভোট চাই’, ‘আমি তরুণ ছেলে ভাই, সেবা করার সুযোগ চাই’ প্রভৃতি।

গত নির্বাচনে পূর্ণ চন্দ্র রায় তাঁর শ্বশুর প্রয়াত সনন্ত বর্মনকে ২০৯ ভোটে হারিয়ে বিজয়ী হয়েছিলেন। এবার তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন শ্যালক মলিন চন্দ্র রায়।

গ্রামবাসী জানান, বর্তমান ইউপি সদস্য পূর্ণ চন্দ্র রায় গত নির্বাচনে তাঁর প্রয়াত শ্বশুর ও সাবেক ইউপি সদস্য সনন্ত বর্মনকে ২০৯ ভোটে হারিয়ে বিজয়ী হয়েছিলেন। এবার পূর্ণ চন্দ্রের প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন মৃত সনন্ত বর্মনের ছেলে ও পূর্ণ চন্দ্রের আপন শ্যালক মলিন চন্দ্র রায়। ওই দুজনেরই বাড়ি সিন্দাগড় গ্রামে। ওই ওয়ার্ডে সদস্যপদে সাহেব আলী নামের আরেকজন প্রার্থী রয়েছেন। সাহেব আলী মোরগ প্রতীকে লড়ছেন।

পূর্ণ চন্দ্র রায় বলেন, ‘ওয়ার্ডবাসী আমাকে আবারও সেবা করার সুযোগ দেবেন আশা করি।’ মলিন চন্দ্র রায় বলেন, ‘আমি তরুণ, ওয়ার্ডবাসী আমাকে নির্বাচিত করলে ওয়ার্ডের সবার উপকারই হবে।’

নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ভোটার সংখ্যা ২ হাজার ৩৩৭। ২৮ নভেম্বর ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন