বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ওই ছাত্রীর অন্তত তিন সহপাঠী জানায়, তাদের ‘গ’ শাখার শ্রেণিকক্ষের ফ্যানের পাখা হঠাৎ খুলে পড়ে। এ সময় শিক্ষার্থী রাণী খাতুনের কপাল কেটে যায়। অপর এক ছাত্রী আহত হয়। রাণীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা মমতাজুল হাসান বলেন, ফ্যানের পাখার আঘাতে রাণীর কপালের ডান পাশে কেটে যাওয়ায় তিনটি সেলাই দেওয়া হয়েছে। সে আশঙ্কামুক্ত।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তপন কুমার রায় বলেন, এটি একটি দুর্ঘটনা। শ্রেণিকক্ষে অনেক দিনের ঝোলানো ফ্যান মরিচা পড়ে নষ্ট হওয়ায় একটি পাখা খুলে পড়েছে। এতে এক শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর সে সুস্থ আছে।

বিদ্যালয়ের কমিটির সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে বিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষের সব ফ্যান পরীক্ষা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দীর্ঘদিনের পুরোনো ফ্যানগুলো পরিত্যক্ত ঘোষণা করে নতুন ফ্যান লাগানোর ব্যবস্থা করা হবে। যাতে এ ধরনের কোনো ঘটনা আর না ঘটে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শামীমা সুলতানা বলেন, বিষয়টি আলোচনা সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন