default-image

কিশোরগঞ্জের মিঠামইন উপজেলায় সিলিন্ডারের পাইপে ছিদ্র হয়ে ছড়িয়ে পড়া গ্যাসে আগুন ধরে একই পরিবারের আটজন দগ্ধ হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ছয়জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্য দুজন প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

আজ শনিবার দুপুরে কাটাখাল গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দগ্ধ ব্যক্তিরা হলেন কাটাখাল গ্রামের হাজীপাড়ার আবদুস সালামের স্ত্রী সিপাইনেছা (৬৫), ছেলে কামাল মিয়া (৩৫), জামাল মিয়া (২৮) ও আনু মিয়া (২৩), মেয়ে তাসলিমা আক্তার (২৫) ও জুয়েনা আক্তার (২০) এবং নাতি উম্মে হানিস (২) ও উম্মে হাবিবা (২ মাস)। তাঁদের মধ্যে জামাল ও আনু প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ব্যক্তিদের শরীরের ৭০ ভাগের বেশি পুড়ে গেছে। সন্ধ্যায় তাঁদের ঢাকায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়েছে।
আবুবকর সিদ্দিক, চিকিৎসা কর্মকর্তা, জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, বাজিতপুর, কিশোরগঞ্জ

হাসপাতাল ও স্থানীয় লোকজন সূত্রে জানা যায়, পরিবারটি সিলিন্ডারের গ্যাসের চুলায় রান্না করে। তাদের সিলিন্ডারের পাইপে ছিদ্র হয়ে আগে থেকেই গ্যাস পুরো ঘরে ছড়িয়ে পড়েছিল। আজ দুপুরে সিপাইনেছা রান্না করতে যান। তিনি ম্যাচ জ্বালালে ছড়িয়ে পড়া গ্যাসে আগুন ধরে। এতে আটজন দগ্ধ হন। আশপাশের লোকজন গিয়ে তাঁদের উদ্ধার করেন। এর মধ্যে জামাল ও আনু প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। অন্যদের বাজিতপুরের জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

হাসপাতালটির জরুরি বিভাগের চিকিৎসা কর্মকর্তা আবুবকর সিদ্দিক বলেন, ভর্তি হওয়া ব্যক্তিদের শরীরের ৭০ ভাগের বেশি পুড়ে গেছে। সন্ধ্যায় তাঁদের ঢাকায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য পড়ুন 0