default-image

সিলেটের দক্ষিণ সুরমার আলমপুরে আলহাজ উদ্দিন (২০) নামের এক তরুণ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের লাইভে গিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে চলছে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা।

আলহাজ উদ্দিন মৃত্যুর আগে ফেসবুকে একটি ছবি পোস্ট করেন। ফেসবুক পোস্টে তিনি লেখেন, ‘কিছু মানুষ নিঃস্বার্থভাবে ভালোবাসে। তারা অনেক স্বার্থপর হয় প্রিয় মানুষটার বিষয়ে। সবকিছু দিয়ে তাদের পেতে চায়। আর আমি কোনোভাবে পাইনি। চলে যাচ্ছি না ফেরার দেশে। ভালোবেসো না, ঠকে যাবে।’

গতকাল বুধবার রাত নয়টার দিকে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার মোগলাবাজার আলমপুরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত তরুণ জকিগঞ্জ উপজেলার মানিকপুর ইউনিয়নের দরগাবাহারপুর গ্রামের লিয়াকত আলীর ছেলে। তিনি পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে আলমপুর এলাকার ফজলু মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, নিহত তরুণ সিলেট সরকারি কারিগরি ইনস্টিটিউটে পড়াশোনা করতেন। গতকাল রাত নয়টার দিকে তিনি নিজ কক্ষে দরজা আটকে গান বাজাচ্ছিলেন। পরে পরিবারের সদস্যরা ডেকে সাড়া না পেয়ে দরজা ভেঙে ভেতরে ঢোকেন। তাঁকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

সিলেট মোগলাবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ছাহাবুল ইসলাম বলেন, ‘প্রেমঘটিত বিষয় নিয়ে আলহাজ উদ্দিন নামের ওই তরুণ আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তিনি ফেসবুক লাইভে ছিলেন বলে শোনা যাচ্ছে। তবে আমরা তেমন কোনো ভিডিও পাইনি। তাঁর লাশ সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।’

ফেসবুকে ওই তরুণের অ্যাকাউন্ট খুঁজে পাওয়া না গেলেও বিভিন্ন গ্রুপ ও পোস্টে তাঁর পোস্টের স্ক্রিন শট ঘুরছে।

মন্তব্য পড়ুন 0