বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পরে ওই কিশোরী রাতেই পরিবারের সদস্যদের বিষয়টি জানায়। সে রাতেই ওই ছাত্রীর দাদা বাদী হয়ে জৈন্তাপুর থানায় ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন।ওই ছাত্রীকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান–স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়।

জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গোলাম দস্তগির আহমদ বলেন, অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে থানা–পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত তরুণকে গ্রেপ্তার করে। পরে দুপুরে তাঁকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন