বিজ্ঞাপন

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও ধরমপাশা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আরিফুল ইসলাম রাত আটটার দিকে মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, ফেসবুকে হেফাজতে ইসলামের সহিংসতার ছবি পোস্ট দেওয়াকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগ নেতা আফজাল খানকে হেনস্তা ও আটক করে রাখার ঘটনায় করা মামলায় এজাহারভুক্ত আসামি আবুল কাশেমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই মামলায় এজাহারভুক্ত ২৯ জন আসামির মধ্যে এ পর্যন্ত ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার ওই আসামিকে কাল বুধবার সকালে আদালতে পাঠানো হবে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ধরমপাশা থানা-পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার জয়শ্রী ইউনিয়নের মহেশপুর গ্রামের বাসিন্দা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজকল্যাণ বিভাগের স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থী আফজাল খান গত ২৯ মার্চ দুপুরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে হেফাজতে ইসলামের সহিংসতার ছবি দিয়ে একটি পোস্ট দেন। স্থানীয় কয়েকজন এটির স্ক্রিনশট নিয়ে রাখেন। গত ৬ এপ্রিল বিকেল পাঁচটার দিকে আফজাল নিজ ইউনিয়নের জয়শ্রী বাজারে আসেন। এ সময় একই ইউনিয়নের বাদে হরিপুর গ্রামের বাসিন্দা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক (সদ্য বহিষ্কৃত) আবুল হাশেম আলমের ছেলে আল মুজাহিদ (২৫) হেফাজতের বিরুদ্ধে কেন পোস্ট দিলেন জানতে চেয়ে ছাত্রলীগের ওই নেতাকে টানাহেঁচড়া এবং ৩০-৪০ জন লোক নিয়ে তাঁকে জয়শ্রী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে আটক করে রাখেন।

এ ঘটনায় আল মুজাহিদ, তাঁর বাবাসহ ২৯ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা ২০-২৫ জনকে আসামি করে ৭ এপ্রিল রাতে ছাত্রলীগ নেতা আফজাল খান বাদী হয়ে ধরমপাশা থানায় একটি মামলা করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন