উজির মিয়াকে ১০ ফেব্রুয়ারি গ্রেপ্তার করেছিল শান্তিগঞ্জ থানা-পুলিশ। তাঁর বাড়ি উপজেলার শত্রুমর্দন গ্রামে। তাঁর ছোট ভাই ডালিম মিয়া বলেন, তাঁর ভাইকে পুলিশ ধরে নিয়ে থানায় নির্যাতন করে। পরদিন তাঁকে একটি চুরির মামলায় আদালতে পাঠালে জামিনে মুক্ত হন। এরপর থেকে উজির মিয়া গুরুতর অসুস্থ হন। এ অবস্থায় আজ দুপুরে তিনি মারা যান।

উজির মিয়ার ছোট ভাই ডালিম মিয়া বলেন, তাঁর ভাইকে পুলিশ ধরে নিয়ে থানায় নির্যাতন করে। জামিনে মুক্ত হওয়ার পর থেকে উজির গুরুতর অসুস্থ হন।
default-image

এরপর বিক্ষুব্ধ স্বজন ও এলাকাবাসী উজির মিয়াকে নির্যাতনে জড়িত পুলিশ সদস্যদের বিচারের দাবিতে লাশ নিয়ে সড়ক অবরোধ করেন। এ সময় সড়কের দুই পাশে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে।  ঘটনাস্থল থেকে শান্তিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ দুপুরে জানান, তাঁরা ঘটনাস্থলে আছেন। তখনো সড়কে অবরোধ চলছিল।

খবর পেয়ে সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু সাঈদ ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আনোয়ার-উল-হালিম ঘটনাস্থলে যান। তাঁদের হস্তক্ষেপে বিকেল পাঁচটার দিকে বিক্ষুব্ধ লোকজন সড়ক অবরোধ প্রত্যাহার করেন।

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য শান্তিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মুক্তাদীর হোসেনের মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি ফোন ধরেননি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন