বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিহত ওই শিক্ষার্থীর নাম মোহাম্মদ আরাফাত (১৩)। সে উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের পুরানপাড়ার বাসিন্দা মুহিবুল্লাহর ছেলে ও নয়াপাড়া ফারুকিয়া মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র। এদিকে পানিতে ডুবে যাওয়ার সময় একই স্থান থেকে মোহাম্মদ শাহিন (১৩) নামের আরও এক মাদ্রাসাছাত্রকে উদ্ধার করা হয়েছে। বর্তমানে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওই সময় মাদ্রাসার বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী সাবরাং ট্যুরিজম পার্কসংলগ্ন সমুদ্রসৈকতে গোসল করতে নামে। একপর্যায়ে আরাফাত ও শাহিন জোয়ারে ভেসে যায়। এ সময় ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের লোকজন খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে এসে মুমূর্ষু অবস্থায় দুজনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানকার চিকিৎসক আরাফাতকে মৃত ঘোষণা করেন।

টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক এম কে আমজাদ হোসেন বলেন, হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই আরাফাত মারা যায়। মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার আরেকজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

জানতে চাইলে টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল আলিম বলেন, নিহত মাদ্রাসাছাত্রের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন