গত বৃহস্পতিবার ওই গৃহবধূ বাবার বাড়িতে যান। সেখানে তাঁর ভাবিকে বিষয়টি খুলে বলেন। পরে তাঁর ভাবির সহযোগিতায় গত বৃহস্পতিবার রাতে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে শুক্রবার ভোরে স্বামীকে গ্রেপ্তার করে। তবে ওই যুবক পালিয়ে যান।

বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, ওই যুবক তাঁর স্বামীর বন্ধু নয়। তবে তাঁর স্বামীর ঘনিষ্ঠ ছিলেন। স্বামীর সহযোগিতায় ওই যুবক গৃহবধূকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছিলেন। ধর্ষণের সময় স্বামী ঘরের বাইরে পাহারায় ছিলেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার স্বামী এসব বিষয় স্বীকার করেছেন। স্ত্রীকে দিয়ে দেহব্যবসা করাতেই তিনি এ কাজ করেছেন। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ নিজে বাদী হয়ে স্বামীসহ দুজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনায় স্বামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকি একজনকে ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে তাঁকেও গ্রেপ্তার করা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন