বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী নূরে আলম প্রথম আলোকে বলেন, এমনিতেই ঘুঘু পাখি বিলুপ্তির পথে। গ্রামাঞ্চলের খেতখামারে ধান, চাল, গম, ডাল, সয়াবিন চাষের সময় ঘুঘুসহ নানা ধরনের পাখি দেখা যেত। এখন আর এসব পাখি আগের মতো দেখা যায় না। কিন্তু সয়াবিন খেতে কিছু ঘুঘু পাখি খেতে এসেছিল, সেগুলোও বিষ প্রয়োগ করে হত্যা করা হলো। বিষয়টি কৃষি বিভাগসহ প্রশাসনের দেখা প্রয়োজন।

এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কৃষকের বক্তব্য জানতে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে হাইমচর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দেবব্রত সরকার প্রথম আলোকে বলেন, ‘বিষ প্রয়োগ করে ঘুঘুসহ যেকোনো পাখি হত্যা করা শুধু অপরাধই নয়, পরিবেশের জন্যও অত্যন্ত ক্ষতিকর। যাঁরাই এ অমানবিক কাজ করেছেন, আমরা খোঁজখবর নিয়ে তাঁদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেব।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন