উপজেলা পরিষদের সামনে উপজেলা আওয়ামী লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে ওই সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন আক্কেলপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোকছেদ আলী। ওই সভায় বক্তব্য দেন আক্কেলপুর পৌরসভার মেয়র শহিদুল আলম চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের মহিলাবিষয়ক সম্পাদক মাহফুজা সুলতানা মলি, আক্কেলপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি এনায়েতুর রহমান আকন্দ স্বপন, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম বাবলু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি, কাউন্সিলর সাদেকুর রহমান প্রমুখ।

আমি কারও বিরুদ্ধে অশোভন বক্তব্য দিইনি। আমি সাংগঠনিক বক্তব্য দিয়েছি। অতি উৎসাহী দলের কিছু নেতা আমার সাংগঠনিক বক্তব্যকে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করার চেষ্টা করছেন।
গোলাম মাহফুজ চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, জয়পুরহাট জেলা আওয়ামী লীগ

বক্তারা বলেন, গতকাল বুধবার দুপুর ১২টার দিকে জয়পুরহাট পৌর কমিউনিটি সেন্টারে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন জয়পুরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য সামছুল আলম দুদু। ওই অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আক্কেলপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র গোলাম মাহফুজ চৌধুরী বক্তব্য দেন। তিনি জয়পুরহাট-২ আসনের সংসদ সদস্য ও হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন সম্পর্কে আপত্তিকর কথাবার্তা বলেন। এটি দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী। তাঁরা জেলা আওয়ামী লীগের কাছে গোলাম মাহফুজ চৌধুরীর বিরুদ্ধ সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানান।

গোলাম মাহফুজ চৌধুরী গতকালের অনুষ্ঠানে হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপনের উদ্দেশে বলেন, ‘আপনার কী ছিল, আজকে কী হয়েছে। আপনি আমাদের কাছে সিগারেট চেয়ে খেতেন। স্বপন সাহেব, আপনাকে কেউ মাইক্রো ভাড়া দিত না। আপনি সেই লোক এখন গাড়ির শেষ নেই। ফ্ল্যাগ লাগিয়ে আসেন। আল্লাহ আপনার ভাগ্যে দিয়েছেন। তাতে অসুবিধা নেই। মানুষের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করেন। আপনারা বুকে হাত দিয়ে বলতে পারবেন স্বপন সাহেবের সঙ্গে ভালোভাবে কথা বলতে পারেন? স্বপন সাহেব মানুষের সঙ্গে কুকুর-বিড়ালের মতো আচরণ করেন। শেখ হাসিনা জয়পুরহাটের খোঁজখবর রাখেন। স্বপন সাহেব কী করেন, আমরা কী করি, তা সব খোঁজখবর রাখেন।’

এ বিষয়ে আক্কেলপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও রুকিন্দীপুর ইউপি চেয়ারম্যান আহসান কবির বলেন, সংসদ সদস্য সামছুল আলমের আয়োজনে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে গোলাম মাহফুজ চৌধুরী হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন সম্পর্কে অশোভন বক্তব্য দিয়েছেন। এ ঘটনার প্রতিবাদে উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে জরুরি সভা আয়োজন করা হয়। হুইপের বিরুদ্ধে অশোভন বক্তব্য দেওয়ায় আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতারা তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। গোলাম মাহফুজ চৌধুরীকে দল থেকে বহিষ্কারের জন্য জেলা আওয়ামী লীগকে অনুরোধ জানিয়েছেন।

জানতে চাইলে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাহফুজ বলেন, ‘আমি কারও বিরুদ্ধে অশোভন বক্তব্য দিইনি। আমি সাংগঠনিক বক্তব্য দিয়েছে। অতি উৎসাহী দলের কিছু নেতা আমার সাংগঠনিক বক্তব্যকে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করার চেষ্টা করছেন।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন