default-image

পিকআপ ভ্যানে ২৯টি বস্তা। ভেতরে কী, জানতে চাওয়ায় পিকআপে থাকা এক তরুণ পালানোর চেষ্টা করেন। পরে ধাওয়া করে তাঁকে আটক করা হয়। পিকআপে ২৯টি বস্তা খুলে পাওয়া যায় ভারতীয় চা-পাতা।

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার লালাখাল সীমান্তের বারগাতি এলাকায় শনিবার রাতে জেলা পুলিশের গোয়েন্দা (ডিবি) শাখার অভিযানে এভাবেই ধরা পড়ে ভারতীয় চা-পাতার চোরাচালান। আজ রোববার এ ঘটনায় মামলা করে আটক তরুণ ফখরুল ইসলামকে (২৪) ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জেলা পুলিশের গণমাধ্যম শাখা বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানায়, ২৯টি বস্তায় মোট ১ হাজার ১২২ কেজি চা-পাতা পাওয়া গেছে। এগুলো ভারতীয় চা-পাতা। বাজারমূল্য প্রায় ৩ লাখ ৩৬ হাজার টাকা। চা-পাতা চোরাচালানের সময় আটক ফখরুলের বাড়ি জৈন্তাপুর উপজেলার বাঘেরখাল দলইপাড়া গ্রামে।

বিজ্ঞাপন

গোয়েন্দা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শনিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে গোপনে খবর পেয়ে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল লালাখাল সীমান্তবর্তী বারগাতি এলাকায় অবস্থান নেয়। এ সময় পিকআপ ভ্যানটি সিলেটের দিকে রওনা করার প্রস্তুতির সময় অভিযান পরিচালনা করে হাতেনাতে ফখরুলকে আটক করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে চা-পাতা চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছেন ফখরুল। এ ঘটনায় জেলা গোয়েন্দা শাখার (উত্তর) এসআই নিতাই লাল রায় বাদী হয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেছেন।

রোববার দুপুরে মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে ফখরুলকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর ও গণমাধ্যম) লুৎফর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, একটি সংঘবদ্ধ চোরাকারবারি চক্র বিভিন্ন সময় শুল্ক ফাঁকি দিয়ে সীমান্তপথে অবৈধভাবে ভারতীয় চা-পাতা বাংলাদেশে এনে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে চড়া মূল্যে বিক্রি করে থাকে। এতে একদিকে যেমন সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে, অন্যদিকে দেশীয় চা-শিল্প ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ ব্যাপারে পুলিশ সুপারের বিশেষ নির্দেশনায় সীমান্ত এলাকায় চোরাচালান বন্ধে নজর রাখছে ডিবি পুলিশ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন