হারাধন চৌধুরী বলেন, বিড়াল পোষা তাঁর শখ। তিন মাস আগে তিনি রিংকিকে লালন-পালন শুরু করেন। গতকাল দুপুরে তিনি বাড়িতে ছিলেন না। বাড়ি এসে দেখেন রিংকি নেই। অন্যদের কাছ থেকে জানতে পারেন, দুপুরে অন্য একটি বিড়াল এসে রিংকির ওপর হামলা চালায়। তখন ভয়ে রিংকি পালিয়ে যায়। পোষা বিড়াল না পেয়ে তিনি ফেসবুকে পোস্ট করেন।

ফেসবুক পোস্টে ৫০০ টাকা পুরস্কারের কথা বলায় অন্তত ২০ ব্যক্তি বিড়াল নিয়ে বাড়িতে আসেন বলে দাবি হারাধন চৌধুরীর। তিনি বলেন, তাঁরা বাড়িতে এসে বিড়াল দেখিয়ে ৫০০ টাকা পুরস্কারের কথা মনে করিয়ে দেন। তখন তাঁদের বলতে হয়, বিড়ালগুলো তাঁর নয়। এ নিয়ে কিছুটা বিড়ম্বনা পোহাতে হয় তাঁকে। পরে আজ দুপুরে ঘরের সিলিংয়ের এক কোনা থেকে রিংকিকে তিনি খুঁজে পান।