সমর চক্রবর্তীর ভাষ্য, প্রায় ২০ দিন আগে সোহেল ঢালীর বড় ভাই নুরুল হক ঢালী হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে সদর হাসপাতালে ভর্তি হন। পরে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে তাঁকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে নেওয়ার কিছুক্ষণ পর নুরুল হক ঢালীর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় কিছুদিন ধরে সোহেল ঢালী তাঁকে দোষারোপ করছিলেন।

আজ সকালে হামলার বর্ণনা দিয়ে সমর চক্রবর্তী বলেন, ‘সকালে হাসপাতালে যাওয়ার সময় সোহেল দলবল নিয়ে আমার পথ রোধ করে। তখন সোহেল বলে, “তুই যদি আমার ভাইকে বরিশাল না পাঠাতি, তবে সে মারা যেত না।” কিন্তু বরিশাল স্থানান্তরের দায়িত্ব চিকিৎসকের, নার্সদের নয়। এটা বলার পরও সোহেল আমাকে মারধর করে। একপর্যায়ে সোহেল আমাকে মোটরসাইকেল দিয়ে চাপা দেওয়ার চেষ্টা করে। এতে আমার হাত ও পায়ে আঘাত লেগেছে।’

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক এ এইচ এম জহিরুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানানো হচ্ছে।
ঝালকাঠি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খলিলুর রহমান বলেন, ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত সোহেলকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তাঁকে আটকের জন্য পুলিশের অভিযান অব্যহত রয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন