প্রতিনিধিদলের সদস্যদের মধ্যে ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সাদেকা হালিম ও খায়রুল চৌধুরী, দৈনিক সমকালের উপদেষ্টা সম্পাদক আবু সাঈদ খান, নাগরিক উদ্যোগের প্রধান নির্বাহী জাকির হোসেন, সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদ, বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের তথ্য ও প্রচার সম্পাদক দীপায়ন খীসা, সাংবাদিক নজরুল কবীর ও মুনতাসির জাহিদ।

এ সময় সাদেকা হালিম সাংবাদিকদের বলেন, ‘নড়াইলের একটি সামাজিক-সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য রয়েছে। কিন্তু দিঘলিয়ায় যে ধরনের ঘটনা ঘটেছে, তা অত্যন্ত লজ্জাজনক ও দুঃখজনক। স্থানীয় সংসদ সদস্য, জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতাদের এখানে সম্প্রীতি সভা করতে হবে। এখানকার মানুষদের নিয়ে বসতে হবে। সামনে সনাতন ধর্মের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা। তাঁরা যাতে শান্তিতে ওই উৎসব উদ্‌যাপন করতে পারেন, সেই ব্যবস্থা করতে হবে।’

default-image

আবু সাঈদ খান বলেন, ‘এখানে সম্পদের চেয়ে মনের ক্ষতি হয়েছে বেশি। আমরা চাই এ ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত, তাদের খুঁজে আইনের কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে হবে। দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। যাতে ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা আর না ঘটে।’
নাগরিক উদ্যোগের প্রধান নির্বাহী জাকির হোসেন বলেন, ‘এটা বিচ্ছিন্ন কোনো ঘটনা নয়। এটা দেশের ধারাবাহিক একটি ঘটনা। বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে বের হয়ে আসতে হবে। তাহলেই বন্ধ হবে এসব।’

দিঘলিয়া গ্রামের এক তরুণের বিরুদ্ধে মহানবী (সা.)–কে কটূক্তি করে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ার অভিযোগ তুলে ১৫ জুলাই সন্ধ্যার পর দিঘলিয়ার সাহাপাড়ায় একটি বাড়ি ভাঙচুর হয়। একটি বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করা হয়। বাজারের পাঁচটি দোকানে চড়াও হয় হামলাকারীরা। হামলা করা হয় চারটি মন্দিরে। এর আগে বিক্ষোভ হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন