চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের সম্মান (অর্থনীতি) চতুর্থ বর্ষের ছাত্র মো. হাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে ওই কলেজ ও সরকারি ভিক্টোরিয়া জুবিলি (ভিজে) মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৪ জন ছাত্র এতে অংশ নেন।

হাফিজুর ছাড়াও আন্দোলনে অংশ নেওয়া অন্য শিক্ষার্থীরা হলেন মুশফিকুর রহমান, সাইফুল্লাহ আল সাদিক, মনিরুল ইসলাম, ফাহিম উদ্দিন, মঈন আশরাফ, মাহাবুব ইসলাম, রিপন ইসলাম, নাসিফ আহমেদ, ইউসা হাবিবুল্লাহ মল্লিক, নূর মোহাম্মদ, সুমন সরদার, নাঈমুর রহমান ও জহিরুল ইসলাম।

সাইফুল্লাহ আল সাদিক প্রথম আলোকে বলেন, ‘প্রতিদিনই অবস্থান কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারীর সংখ্যা বাড়ছে। আমরা ভবিষ্যতে এ আন্দোলনকে গণ-আন্দোলনে রূপ দিতে চাই। অধিকার আদায় না হওয়া পর্যন্ত কর্মসূচি চলছে এবং চলবে।’

শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হলো টিকিট ক্রয়ে যাত্রী হয়রানি অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে; হয়রানির ঘটনায় তদন্তের মাধ্যমে ব্যবস্থা নিতে হবে; যথাযথ পদক্ষেপের মাধ্যমে টিকিট কালোবাজারি বন্ধ করতে হবে; অনলাইন কোটায় টিকিট ব্লক বা বুক করা বন্ধ করতে হবে, পাশাপাশি অনলাইন-অফলাইনে টিকিট ক্রয়ে সর্বসাধারণের সমান সুযোগ নিশ্চিত করতে হবে; যাত্রী চাহিদার সঙ্গে সংগতি রেখে ট্রেনের সংখ্যা বৃদ্ধিসহ রেলের অবকাঠামো উন্নয়নে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে; ট্রেনের টিকিট পরীক্ষক, তত্ত্বাবধায়কসহ অন্য দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের কার্যক্রম সার্বক্ষণিক মনিটর, শক্তিশালী তথ্য সরবরাহব্যবস্থা গড়ে তোলার মাধ্যমে রেলসেবার মান বাড়াতে হবে এবং ট্রেনে ন্যায্য দামে খাবার বিক্রি, বিনা মূল্যে খাবার পানি সরবরাহ ও স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশন-ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন