আজ শনিবার বগুড়ায় জাতীয় কম্পিউটার প্রশিক্ষণ ও গবেষণা একাডেমি (নেকটার) চত্বরে দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত রোবোটিকস অলিম্পিয়াডে এ রোবট ও অ্যাপ প্রদর্শন করা হয়। ২৬টি বিশ্ববিদ্যালয়সহ ৪৯টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন ব্যতিক্রমী উদ্ভাবন নিয়ে দেশে প্রথমবারের মতো এ রোবোটিকস অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সকালে রোবোটিকস অলিম্পিয়াডের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ মহসিন।

বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের (সিএসই) সাবেক ডিন অধ্যাপক মোহাম্মদ কায়কোবাদ ও সরকারের এটুআই প্রকল্পের পরিচালক দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবির। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নেকটারের পরিচালক মো. শাফিউল ইসলাম।

রোবোটিকস অলিম্পিয়াডে দুটি গ্রুপে এবং ৪ ক্যাটাগরিতে ১০৬টি দলের ৩৩১ জন শিক্ষার্থী তাঁদের উদ্ভাবিত নানা প্রযুক্তি প্রদর্শন করেন।

এতে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি, ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি, আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, আহসানউল্লাহ ইউনিভাসিটিসহ ৪৯টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। এ সময় ওয়্যারলেস কন্ট্রোল রোবটের ফুটবল প্রতিযোগিতাসহ নানা আয়োজন ছিল।

অলিম্পিয়াডে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিশারিজ বিভাগের শিক্ষার্থী আবদুস সালাম, মোস্তারিনা আফরোজ ও আবু বক্করের উদ্ভাবিত অ্যাকুয়া কালচার রোবট প্রদর্শিত হয়। এ রোবটের সাহায্যে মাছ ও চিংড়ির খামারে পানি ও খাদ্য ব্যবস্থাপনার কাজ করা যাবে—যা নজর কেড়েছে দর্শনার্থীদের। এই রোবট পুকুরে অনাহূত ব্যক্তির অনুপ্রবেশের ছবি স্পাইং ক্যামেরার মাধ্যমে তুলে এনে স্মার্টফোনে পাঠাবে।

বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলজির (বিইউবিটি) শিক্ষার্থী মৃদুল হাসান, সবুজ আলী, ময়েনউদ্দীন ও বায়েজিদের নেতৃত্বে একদল শিক্ষার্থী উদ্ভাবন করেছেন মাল্টিপারপাস এগ্রোবট (রোবট), রোবট কাকতাড়ুয়া, আইওটি বেস স্মার্ট ইরিগেশন সিস্টেম।

default-image

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা হ্রাসে স্মার্ট হেলমেট উদ্ভাবন করেছেন টিএমএসএস ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের শিক্ষার্থী মঈনুল হাসান ওরফে সাদিক ও তাঁর দল। মঈনুল হাসান বলেন, এই হেলমেট চালককে সড়কের ট্রাফিক–ব্যবস্থা, পেছনে থাকা যানবাহনের বিষয়ে তথ্যসহ দুর্ঘটনার ঝুঁকি জানাবে। এ ছাড়া দুর্ঘটনা ঘটলে সেখানকার ছবি স্বয়ংক্রিয়ভাবে তুলে তা স্মার্টফোনে সংরক্ষণ ও নিকটস্থ হাসপাতালসহ পুলিশকে জানাবে।

নটর ডেম কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থী তৈরি করেছেন ‘রেবনি’। আগুন নেভাতে সক্ষম এটি। ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা যেখানে যেতে পারেন না ‘রেবনি’ সেখানে যেতে পারবে। অগ্নিকুণ্ড যত বড় হবে, ‘রেবনি’ তত দ্রুততার সঙ্গে কাজ করতে পারবে।
বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজ এবং আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা যৌথভাবে তৈরি করেছেন মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান্ট রোবট। রোবটটি রোগীকে বিভিন্নভাবে সেবা ও বার্তা দিতে পারে।

অলিম্পিয়াডের শেষে ছয়টি দলকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। জানতে চাইলে নেকটারের পরিচালক মো. শাফিউল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, চতুর্থ শিল্পবিপ্লবে রোবটের গুরত্ব অপরিসীম। এই শিল্পে ৪০ লাখ লোক কর্মসংস্থানের সুযোগ পাবে। বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হলে আমাদের আরও আধুনিক রোবট তৈরি করতে হবে। এই রোবটের মাধ্যমে আমাদের প্রয়োজন মেটানো যাবে। তরুণ ও যুবকেরা যেন দেশের জন্য কাজ করেন, সে জন্য তাঁদের উৎসাহ দিতে হবে।

ফলাফল

বিচারকদের নম্বরের ভিত্তিতে ‘রোবো সোসার’ বিভাগের জন্য প্রাইম এশিয়া ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের দলকে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়। তারা পুরস্কার হিসেবে পেয়েছে ৪০ হাজার টাকা। এ ছাড়া রাজধানীর ড. মোশারফ কলেজের দল প্রথম রানার্সআপ হয়ে ৩০ হাজার টাকা এবং শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ দল দ্বিতীয় রানার্সআপ হয়ে ১৫ হাজার টাকা জিতেছে।

এ ছাড়া লাইন ফলো উইং বিভাগে চ্যাম্পিয়নসহ তিনটি পুরস্কার জিতেছেন ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (ডুয়েট) শিক্ষার্থীরা। উদ্ভাবন প্রদর্শনীর জুনিয়র গ্রুপে সাতক্ষীরা পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ চ্যাম্পিয়ন, বগুড়ার আর্মড পুলিশ পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও সরকারি আজিজুল হক কলেজ যৌথভাবে প্রথম রানার্সআপ এবং ঈশ্বরদী সরকারি কলেজ দ্বিতীয় রানার্সআপ হয়েছে।

উদ্ভাবন প্রদর্শনীর সিনিয়র গ্রুপে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রথম রানার্সআপ এবং আহসানউল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় দ্বিতীয় রানার্সআপ হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন