উপজেলার লক্ষ্মীপুর গ্রামের বাসিন্দা মো. রাশেদ বলেন, সড়কটি গোমতী নদীর তীরবর্তী। সড়কের ওই অংশ গোমতী নদীর পানির চাপে দেবে যেতে পারে। সকাল থেকে ওই সড়কে যাতায়াত বন্ধ হয়ে যাওয়ায় স্থানীয় লোকজন ভোগান্তিতে পড়েছেন।

চারপাড়া গ্রামের গৃহবধূ রোকসানা আক্তার বলেন, সড়কটি দ্রুত সংস্কার করতে হবে। কারণ, এমনভাবে সড়কটি দেবে গেছে যে এলাকার কেউ অসুস্থ হলে তাঁকে এই পথ দিয়ে হাসপাতালে নেওয়াও সম্ভব নয়।

লক্ষ্মীপুর গ্রামের বাসিন্দা মো. মোসলেম উদ্দিন বলেন, আশপাশের অন্তত ১০টি গ্রামের মানুষ এই সড়ক ব্যবহার করেন। এ সড়কের কোনো বিকল্প সড়কও নেই। এক বছর আগে সড়কটি পাকা করা হয়েছিল। পাকা করার পর এর আগেও একবার সড়কের একটি অংশ ভেঙে পড়েছিল। পরে স্থানীয় বাসিন্দাদের উদ্যোগে সড়ক জোড়াতালি দিয়ে যানবাহন চলাচল শুরু হয়েছিল। এখন সড়ক দেবে যাওয়ায় যান চলাচল পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেছে।

তবে সকাল নয়টার দিকে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) দাউদকান্দি উপজেলা প্রকৌশলী মো. আফসার হোসেন খন্দকারের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সড়ক দেবে যাওয়ার বিষয়ে তিনি জানেন না। সরেজমিন বিষয়টি দেখে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।