এ ঘটনায় উদ্ধার হওয়া তিনজন হলেন মোস্তফা কাদেরের স্ত্রী সেলিনা সিকদার (৩৫), ছেলে মাহাতির মোহাম্মাদ (৯) ও আরেক ছেলে আবদুল করিম (১৬)।

ওই এনএসআই কর্মকর্তার পরিবার সূত্রে জানা যায়, মোস্তফা কাদেরের স্ত্রী দুই ছেলেকে নিয়ে ঢাকায় থাকেন। ঈদের ছুটিতে তাঁর স্ত্রী দুই ছেলে ও বোনের মেয়ে জুঁইকে নিয়ে বরগুনায় বেড়াতে আসেন। আজ দুপুরে তাঁরা তালতলীর শুভসন্ধ্যা সমুদ্রসৈকতে ঘুরতে আসেন। পরে সবাই সাগর মোহনায় গোসল করতে নামেন।

একপর্যায়ে ঢেউয়ের তোড়ে তাঁরা সাগরের ডুবে যায়। পরে খোঁজাখুঁজির পর তিনজনকে পাওয়া গেলেও এনএসআই কর্মকর্তাসহ জুঁই নিখোঁজ রয়েছেন। তাঁদের উদ্ধারে কোস্টগার্ড, নৌ পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও থানা পুলিশের কয়েকটি টিম কাজ করছে।

এ বিষয়ে তালতলী ফায়ার সর্ভিসের অফিসার মো. আহসান হাবিব জানান, গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে তিনজনকে স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করেছেন। আরও দুজন নিখোঁজ রয়েছেন। তাঁদের উদ্ধারে পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সমন্বয়ে উদ্ধারকাজ চলছে।

এ বিষয়ে তালতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম সাদিক তানভীর প্রথম আলোকে বলেন, আজ দুপুরে গোলাম মোস্তফা কাদের তাঁর পরিবারের সদস্য ও তাঁর স্ত্রীর বোনের মেয়েকে নিয়ে শুভসন্ধ্যা সমুদ্রসৈকতে গোসল করতে নামেন। একপর্যায়ে উঁচু ঢেউ এসে তাঁদের ভাসিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় স্থানীয় লোকজন মাছ ধরার ট্রলার নিয়ে তিনজনকে উদ্ধার করতে পারলেও ওই এনএসআই কর্মকর্তাসহ দুজন নিখোঁজ রয়েছেন। তাঁদের উদ্ধারে অভিযান চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন