প্রত্যক্ষদর্শী ও আহত ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সন্ধ্যার দিকে সোনাডাঙ্গা কাঁচাবাজারসংলগ্ন এক শ্রমিক লীগ নেতার কার্যালয়ে বসে নিজেদের মধ্যে কথা বলছিলেন ওই তিনজন। এ সময় ১০–১৫ জন এসে অতর্কিত তাঁদের ওপর হামলা করে। বেধড়ক মারধরে গুরুতর আহত হন তাঁরা। পরে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে গেলে তাঁদের উদ্ধার করে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহত আনোয়ার মুন্সী বলেন, নতুন কমিটি হওয়ার পর তাঁরা ওই এলাকায় সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে গিয়েছিলেন। সেখানে শ্রমিক লীগের বিশেষ সভা আহ্বান করা হয়েছিল। তাঁরা সেখানে বসে আলোচনা করার মধ্যে ১০–১৫ জন এসে তাঁদের ওপর অতর্কিত আক্রমণ করে এবং মারধর করে।

সোনাডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মমতাজুল হক বলেন, ওই এলাকায় মারামারির খবর শুনে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তিনজন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। নতুন কমিটি দেওয়া নিয়ে ওই মারামারির ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।