স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পৈতৃক জমি নিয়ে পুতুল সিংহের সঙ্গে তাঁর ছোট ভাই বিপিন সিংহের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এর মধ্যে গতকাল বিকেলে দুজনের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। এ ঘটনার জেরে গতকাল রাত সাড়ে ১০টার দিকে বিপিন ও তাঁর ছেলে নিশি সিংহ পুতুলের বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় প্রতিপক্ষের লোকজন ধারালো দা দিয়ে পুতুলকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করেন। একপর্যায়ে পুতুলের স্ত্রী লক্ষীরাণী সিনহা তাঁর স্বামীকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে প্রতিপক্ষের লোকজন তাঁর ওপরও হামলা চালান। পুতুলের বাড়ির লোকজনের চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যান।

পরে পুতুল ও তাঁর স্ত্রীকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে কমলগঞ্জ উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়। তবে পুতুলের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় রাতেই তাঁকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে গতকাল দিবাগত রাত একটার দিকে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে লক্ষীরাণীর অবস্থার অবনতি হওয়ায় পরে তাঁকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এ ঘটনার পর থেকে বিপিন সিংহ ও তাঁর ছেলে নিশি সিংহ গা ঢাকা দিয়েছেন। তাই অভিযোগের বিষয়ে তাঁদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সঞ্চয় চক্রবর্তী বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। হামলাকারীদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশের অভিযান চলছে।