লিখিত অভিযোগ থেকে জানা গেছে, আবদুস সাত্তার আজ সকালে ভৈরবের শম্ভুপুরে নিজবাড়ি থেকে কলেজের উদ্দেশে রওনা দেন। সকাল ৮টা ৪০ মিনিটের দিকে বেলাব উপজেলার নারায়ণপুর বাসস্ট্যান্ডে বাস থেকে নেমে মহাসড়ক পার হচ্ছিলেন তিনি। এ সময় অজ্ঞাতপরিচয় এক যুবক ধারালো চাকু দিয়ে তাঁর ঘাড় থেকে পিঠ পর্যন্ত আঘাত করেন। এরপর মহাসড়কের এক পাশে মোটরসাইকেল নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকা এক ব্যক্তির সহযোগিতায় হামলাকারী পালিয়ে যান। এ সময় আহত কলেজশিক্ষকের চিৎকারে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে তাঁকে উদ্ধার করেন। তাঁকে বেলাব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়।

ছুরিকাহত আবদুস সাত্তার প্রথম আলোকে বলেন, ‘জানা মতে আমার কোনো শত্রু নেই। আমি দীর্ঘদিন ধরে ওই কলেজে শিক্ষকতা করে আসছি। যে আমাকে ছুরিকাঘাত করেছে, তাকে আমি চিনতে পারিনি।’

নারায়ণপুর রাবেয়া মহাবিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো. মজিবুর রহমান দোষীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

বেলাব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তানভীর আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, ভুক্তভোগী শিক্ষক নিজেই থানায় এসে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ ঘটনায় তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতিমধ্যে তাঁরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পুলিশি তদন্ত শুরু হয়েছে।