এপিবিএন সূত্র জানায়, সোমবার রাতে ৮-১০ জন অজ্ঞাতনামা অস্ত্রধারী রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী হাবিবুল্লাহ নামের এক যুবকের কাছ থেকে মুঠোফোন ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করলে ওই যুবক বাধা দেন। তখন তাঁকে গুলি করে আহত করা হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে। একটি সন্ত্রাসী দলের সশস্ত্র অবস্থানের খবর পেয়ে আই ব্লকে অভিযানে যায় পুলিশ। এ সময় মুখোশধারী সশস্ত্র রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা এপিবিএনের মুখোমুখি হয়ে এলোপাতাড়ি গুলি ছোড়ে পাহাড়ের দিকে পালিয়ে যায়। তখন কনস্টেবল মোহাম্মদ কাউসার গুলিবিদ্ধ হন। পরে তাঁকে উদ্ধার করে রোহিঙ্গা শিবিরের স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য দ্রুত তাঁকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়।

প্রথম আলোকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন এপিবিএনের ওই ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক ও অতিরিক্ত ডিআইজি মোহাম্মদ হাসান বারী নুর। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা শিবিরে অভিযান চলমান। এপিবিএন পুলিশ সদস্য কনস্টেবল মোহাম্মদ কাউসারের পেটে গুলি লেগেছে। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক। তিনি বর্তমানে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। সন্ত্রাসীদের আটকের ব্যাপারে অভিযান এখনো চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন