দীপু মনি বলেন, ‘বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের জন্য বিভিন্ন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আমরা এখন থেকেই যদি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর ক্লাস পাঁচ দিন করি, তাহলে এক দিন বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের সুযোগ পাব। শহরে এক দিন শিক্ষার্থীদের স্কুলে আনা-নেওয়ার জন্য যে পরিমাণ যানবাহন চলে, সেটার সাশ্রয় হবে। তবে এখনো এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি, সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছি।’

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা পাঁচ দিনের মধ্যে ক্লাসগুলো এমনভাবে পুনর্বিন্যাস করতে চাই, যাতে করে শিক্ষার্থীদের কোনো সমস্যা না হয়। এ ছাড়া করোনাকালে যে শিখনঘাটতি হয়েছে, সেটি পূরণের জন্য পরিকল্পনা চূড়ান্ত হয়েছে।’

এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায়, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বশির আহমেদ, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র মো. জিল্লুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

পরে দীপু মনি জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন। এ ছাড়া চাঁদপুর প্রেসক্লাব, চাঁদপুর সরকারি কলেজসহ বিভিন্ন স্থানে জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে যোগ দেন শিক্ষামন্ত্রী।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন