১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়া দাখিল পরীক্ষায় রাসেল মৃধা অংশগ্রহণ করেছে। এক পায়ের আঙুলের ফাঁকে কলম রেখে রাসেল লিখে থাকে। আগের প্রতিটি পাবলিক পরীক্ষায় সাফল্যের সঙ্গে কৃতকার্য হয়েছে সে। গত ১৫ সেপ্টেম্বর প্রথম আলোর অনলাইন সংস্করণে ‘পা দিয়ে দাখিল পরীক্ষা দিচ্ছে রাসেল’ শিরোনামে সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, আজ বেলা সাড়ে ১১টায় জেলা প্রশাসক রাসেল মৃধাকে দেখতে সিংড়ার শোলাকুড়া ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসা কেন্দ্রে যান। তিনি কিছু সময় তাঁর সঙ্গে আলাপ করেন। এ সময় জেলা প্রশাসক রাসেলের ব্যক্তিগত, শিক্ষাজীবন ও পারিবারিক বিষয়ে খোঁজখবর নেন। একপর্যায়ে জেলা প্রশাসক তাকে অর্থসহায়তা দেন।

এ সময় জেলা প্রশাসক বলেন, দুই হাত ও এক পা-বিহীন প্রতিবন্ধী সন্তানকে পড়ালেখার সুযোগ করে দিয়ে রাসেলের মা-বাবা মহৎ কাজ করছেন। জেলা প্রশাসন সব সময় এ অদম্য মেধাবীর পাশে থাকবে। সমাজের বিত্তবানদেরও রাসেলের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সিংড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এম এম সামিরুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আল ইমরান, কেন্দ্রসচিব মাওলানা মোতাররফ হোসেন।

পরীক্ষা শেষে বেলা আড়াইটার দিকে রাসেল মৃধা প্রথম আলোকে বলে, ‘জেলা প্রশাসক স্যার আমাকে দেখতে এসেছেন, এতেই আমি খুব খুশি হয়েছি। এটা ভবিষ্যতে এগিয়ে যাওয়ার জন্য অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে। তিনি আমাকে কিছু অর্থসহায়তা করেছেন। এই অর্থ আমার পড়াশোনায় কাজে লাগবে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন