আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাখওয়াত হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মু. সাদেক কুরাইশী, সাধারণ সম্পাদক দীপক কুমার রায়, ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের সংসদ সদস্য দবিরুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলনে প্রথম অধিবেশনে সভাপত্বি করেন নগেন পাল।

বিকেল চারটা পর্যন্ত সম্মেলনের প্রথম অধিবেশন চলে। এদিকে কলেজ বন্ধ দিয়ে সম্মেলনের আয়োজন করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিভাবকেরা। তারা বলছেন, করোনাকালে শিক্ষার্থীরা পড়াশোনায় অনেকটাই পিছিয়ে গেছে। এর ওপর সামনে এইচএসসি পরীক্ষা। এ সময় কলেজ ছুটি দিয়ে মাঠে রাজনৈতিক দলের সমম্মেলনের আয়োজন করা ঠিক হয়নি।

কাল থেকে পাঠ চলবে। এক দিনে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার তেমন কোনো ক্ষতি হবে না।
জিয়াউল হাসান, অধ্যক্ষ, হরিপুর মহিলা কলেজ

আবু হাসান নামের এক অভিভাবক বলেন, রাজনৈতিক দলের সম্মেলনের আয়োজন করার মতো উপজেলা শহরে অনেক জায়গা রয়েছে। সেসব জায়গায় সম্মেলনের আয়োজন করা হলে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার ক্ষতি হতো না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কলেজের এক শিক্ষক বলেন, সম্মলনের কারণে কলেজের পাঠ চলছে না। এ ছাড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান প্রয়োজনে সংরক্ষিত ছুটি দিতে পারেন।

হরিপুর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ জিয়াউল হাসান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান। সম্মেলনের ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কাল থেকে পাঠ চলবে। এক দিনে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার তেমন কোনো ক্ষতি হবে না।

ঠাকুরগাঁও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা খন্দকার মো. আলাউদ্দীন আল আজাদ মুঠোফোনে বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছুটি দিয়ে এভাবে সম্মেলনের আয়োজন করা নিয়মবহির্ভূত। বিষয়টি যাচাই করে প্রায়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন