বিএনপির নেতা হারুন অর রশিদ বলেন, ‘গতকাল পাংশা, বালিয়াকান্দি, কালুখালী থেকে আসার সময় যে কী পরিমাণ হয়রানি করা হয়েছে, তা শুধু আল্লাহ রাব্বুল আলামিন জানে। যাঁরা পরিচিত তাঁদের বাড়িতেই পুলিশ যাচ্ছে।’

জেলা যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মেহেদী হাসানের বাড়ি কালুখালী উপজেলার তোফাদিয়া গ্রামে। রাতে তাঁর বাড়িতে পুলিশ অভিযান চালিয়েছে বলে জানান তিনি। মেহেদী মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমি রাতে বাড়িতে ছিলাম না। দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে ফরিদপুর সমাবেশস্থলে আছি। আমার নামে থানায় কোনো মামলা নেই। অথচ বাড়িতে গভীর রাতে পুলিশ গিয়েছিল। বাড়িতে আছি কি না জানতে চেয়েছে।’

এ বিষয়ে সহকারী পুলিশ সুপার (পাংশা সার্কেল) সুমন কুমার সাহা বলেন, গ্রেপ্তারি পরোয়ানা থাকায় গত রাতেও অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। তা ছাড়া অন্য কোনো কারণে কারও বাড়িতে যাওয়া হয়নি।