পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, উপজেলায় পুকুর খনন নিষিদ্ধ থাকায় রাতের বেলায় কনোপাড়ায় একজন ইউপি সদস্য খননযন্ত্র দিয়ে পুকুর খনন করে আসছিলেন। ওই মাটি তিনি ইট ভাটায় বিক্রি করেন। রাতে ট্রাক্টরে ওই মাটি ইটভাটায় নিচ্ছিলেন আলামিনসহ কয়েকজন ট্রাক্টরের চালক। রাতের কোনো এক সময় আলামিন হোসেন পুকুর থেকে ট্রাক্টরে মাটি ভরে ভাটায় নেওয়ার সময় তাঁর ট্রাক্টরটি সড়কের পাশে পড়ে উল্টে যায়। এতে তিনি ট্রাক্টরের নিচে চাপা পড়ে মারা যান। এ সময় তাঁর সহকারীরা পালিয়ে যান। আজ সকালে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আলামিনের লাশ উদ্ধার করে।

বাগমারা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তৌহিদুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, লাশটি ট্রাক্টরের নিচে চাপা পড়েছিল। ট্রাক্টরের একটি চাকা ফাটা অবস্থায় পাওয়া গেছে। থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি নথিভুক্ত করার পর লাশ পরিবারের কাছে দাফনের জন্য হস্তান্তর করা হয়েছে।