মামুন শ্যামনগর উপজেলার নুরনগর ইউনিয়নের দক্ষিণ হাজিপুর গ্রামের আবদুল হামিদ গাজীর ছেলে। শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসকেরা জানান, অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় তাঁকে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

আহত যুবকের পরিবারের বরাত দিয়ে তাঁর প্রতিবেশী আবদুর রহিম জানান, কালিগঞ্জ থেকে হাজিপুর গ্রামে নিজের বাড়িতে ফিরছিলেন মামুন। রাত সাড়ে নয়টার দিকে কার্টুনিয়া রাজবাড়ি কলেজের সামনে পৌঁছানোর পর দু–তিনজন তরুণ তাঁর গতিরোধ করে। এ সময় তারা মামুনকে মারধর করে ব্যবহৃত মোটরসাইকেল ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। একপর্যায়ে ছিনতাইকারী চক্রের এক সদস্যকে ধাক্কা দিয়ে দ্রুত নিজ মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টার সময় পেছন দিক থেকে তাঁকে গুলি করা হয়।

আবদুর রহিম আরও বলেন, কোমরে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় স্থানীয় লোকজন তাৎক্ষণিকভাবে মামুনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পৌঁছে দেন।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক মিলন হোসেন বলেন, মামুনের কোমরের বাঁ পাশে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। গুলি কোমর ভেদ করে ভেতরে ঢুকে যাওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী ওয়াহিদ মুর্শেদ বলেন, এক যুবক গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর পেয়ে পুলিশকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে। সার্বিক বিষয়ে খোঁজখবর নিয়ে অপরাধীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনার চেষ্টা করা হবে।