বিএনপির সমাবেশের মতো জাতীয় পার্টিকেও ভাবতে হবে। কেননা, রংপুরের রাজনীতিতে আগের মতো অবস্থান নেই জাপার। 
মোস্তাফিজার রহমান, রংপুর মহানগর জাপার সভাপতি 

রংপুরের বিশিষ্ট দন্তচিকিৎসক মোজাফফর হোসেন বলেন, রংপুরের রাজনীতিতে একসময় ভালো নেতারা ছিলেন। এখন নেতৃত্বের সংকট। যাঁরা রাজনীতির হাল ধরে নেতৃত্ব দিচ্ছেন, তাঁরা সব সময় রংপুরে থাকেন না বলে এ অবস্থা হয়েছে। এ সমাবেশ দেখে আরও মনে হয়েছে, আবার রাজনীতির সুবাতাস বইতে শুরু করেছে। 

অন্যদিকে, বিএনপির নেতা-কর্মীরা বলছেন, বর্তমানে রংপুরের রাজনীতিতে বিএনপি সে রকম শক্ত অবস্থান নেই। মাঝে শাসক দলের চাপে পড়ে তাঁরা প্রায় মাঠ থেকে চলে গিয়েছিলেন। মন্দাভাব কাটিয়ে সুদিন ফিরিয়ে আনতে এই বিভাগীয় সমাবেশ নেতা-কর্মীদের অনুপ্রাণিত করেছে, আশার আলো জুগিয়েছে। নতুনভাবে দল গোছানোর কাজে এ সমাবেশ তাঁদের সাহস জুগিয়েছে। 

বিএনপি রংপুর মহানগর কমিটির আহ্বায়ক সামসুজ্জামান বলেন, একসময় রংপুরে বিএনপির রমরমা অবস্থা ছিল। কিন্তু ১৯৮২ সালের পর থেকে সে অবস্থা আর ধরে রাখা যায়নি। এরপর নানাভাবে রাজনৈতিক হয়রানির কারণে নেতা-কর্মীদের মধ্যে হতাশা তৈরি হয়েছিল। সেটি এ সমাবেশের মাধ্যমে নেতা-কর্মীরা চাঙা হয়েছেন। 

এদিকে জাতীয় পার্টির (জাপা) দুর্গ বলে খ্যাত রংপুর। দলীয় কর্মীরা বলেন, মহাজোটের রাজনীতি করতে গিয়ে দলের কার্যক্রমে ভাটা পড়েছে। দলীয় কর্মসূচি না থাকায় নেতা-কর্মীদের মধ্যে স্থবিরতা দেখা দেয়। সে অবস্থা থেকে বেরিয়ে এসে কর্মসূচি দিয়ে দলকে নতুন করে গড়ে তুলতে হবে। বিএনপির সমাবেশের পর এমনটাই তাঁদের ভাবনা। 

রংপুর মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি ও সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান বলেছেন, বিএনপির সমাবেশের মতো জাতীয় পার্টিকেও ভাবতে হবে। কেননা, রংপুরের রাজনীতিতে আগের মতো অবস্থান নেই জাপার। মহাজোটের বাইরে এখন নতুন করে ভাবতে হবে জাতীয় পার্টিকেও।