পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশে ইসাহাক সরকার বলেন, ‘এই অবৈধ সরকারের হয়ে দেশের জনগণের টাকায় কেনা অস্ত্র ও গুলি জনগণের বুকে চালাবেন না। যদি অবৈধ সরকারের পক্ষপাতিত্ব করতে চান, তাহলে মুজিব কোট পরে অস্ত্র ব্যবহার করেন।’

সমাবেশে বক্তারা বলেন, পুলিশ নারায়ণগঞ্জে যুবদল কর্মী শাওনকে গুলি করে হত্যা করেছে। ভোলায় ছাত্রদল নেতা নূরে আলম ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা আবদুর রহিমকেও গুলি করে হত্যা করেছে। যুবদল এই হত্যার বিচার চায় না। কারণ, এই ফ্যাসিস্ট সরকার ভোটের অধিকার, বাক্‌স্বাধীনতা, গণতন্ত্র কেড়ে নিয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর মতো বিচার বিভাগসহ রাষ্ট্রের সব বিভাগকে নিজেদের অবৈধ শাসন টিকিয়ে রাখতে ব্যবহার করছে। তাই যুবদল এই হত্যাযজ্ঞের বিচার চায় না।

বরিশাল দক্ষিণ জেলা যুবদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মামুন রেজা খানের সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন দক্ষিণ জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক তছলিম উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফিজ আহমেদ, সহসভাপতি সালাউদ্দিন নাহিদ, বরিশাল উত্তর জেলা যুবদলের আহ্বায়ক সালাউদ্দিন পিকলু, সদস্যসচিব গোলাম মোর্শেদ, যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম, মেহেন্দীগঞ্জ পৌর যুবদলের সদস্যসচিব আমজাদ পোদ্দার প্রমুখ।

এর আগে যুবদলের নেতা-কর্মীরা খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে দলীয় কার্যালয়ের সামনে জড়ো হন। যুবদলের শোকমিছিল ঘিরে সদর রোড এবং দলীয় কার্যালয়ের সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন