বিএনপির উদ্দেশে মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, ‘নির্বাচন অধিক গ্রহণযোগ্য ও ত্রুটিমুক্ত করতে আপনাদের যদি কোনো পরামর্শ থাকে, সংবিধানের মধ্য থেকে আপনারা দিতে পারেন। অবশ্যই সেটা বিবেচনা করবে সরকার, সেটা বিবেচনা করবে নির্বাচন কমিশন। তবে সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। যারা স্বাধীনতাবিরোধী, পাকিস্তানের দোসর, যারা পাকিস্তানের তাঁবেদার, পাকিস্তানের আদর্শ নিয়ে চলে, তাদের কথায় সংবিধান পরিবর্তন হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। যদি আপনারা সংবিধানের মধ্যে থেকে নির্বাচনে অংশ নেন, তাহলে আপনাদের স্বাগত জানাই। আর যদি না করেন তাহলে সেটার দায়ভার আপনাদের।’  

 মির্জা ফখরুলের উদ্দেশে মাহবুব উল আলম বলেন, ‘আপনারা আপনাদের কর্মীদের হত্যার বিচার চান। বিচার হচ্ছে, বিচার তো শুরু হয়েছে। ২০১৩, ১৪, ১৫ সালে আপনারা আন্দোলনের নামে পেট্রল দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারছেন। সরকারি সম্পদ নষ্ট করেছেন, সেসব মামলা আছে ও বিচারও হচ্ছে। এসব হত্যাকণ্ডের দায়ভার নিয়ে আপনাদের নেত্রীর মতো হয় কারাগারে, নয়তো দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে পালাতে হবে।’  

মাহবুব উল আলম আরও বলেন, বিএনপির সৃষ্টি হয়েছে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসের হাতে। বিএনপি-জামায়াত কখনো বাংলাদেশের উন্নয়নে বিশ্বাস করে না।

চাটখিল উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জাহাঙ্গীর কবির। এটি সঞ্চালনা করেন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এইচ এম আলী তাহের। এতে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ, নোয়াখালী-৩ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহমুদুর রহমান বেলায়েত, নোয়াখালী-১ আসনের সংসদ সদস্য এইচ এম ইব্রাহীম, নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ এ এইচ এম খায়রুল আনম চৌধুরী সেলিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সিহাব রহমান ও সহিদ উল্যাহ খান, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।