হাসপাতালে চিকিৎসকেরা শিশুদের অভিভাবকদের কাছে জানতে চান, গত রাতে শিশুরা কী খাবার খেয়েছে। কিন্তু পরিবার স্পষ্ট করে কিছু বলতে পারেনি। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ যায়। পুলিশকে নিহত শিশুর বাবা আক্তার মিয়া বলেন, তাঁর ছেলেদের জিনে ধরেছে। জিনের আসরে এমনটি হয়েছে।

জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা মমিন উদ্দিন চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, এই দুই শিশুকে হাসপাতালে আনার এক ঘণ্টার ব্যবধানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। ধারণা করা হচ্ছে, বিষক্রিয়ায় তাদের মৃত্যু হয়েছে। হতে পারে সেটি খাবার থেকেও। তবে লাশের ময়নাতদন্ত ছাড়া মৃত্যুর সঠিক কারণ নির্ণয় করা যাবে না বলে জানান এই স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।

হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মর্তুজা আলী প্রথম আলোকে বলেন, ‘জিনের আসরে শিশুদের মৃত্যু হয়েছে বলে যে দাবি তাদের অভিভাবক করেছেন, তা সঠিক নয়। আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি, খাদ্যে বিষক্রিয়ার কারণে এ মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে। বিষয়টি পরিষ্কার করার জন্য এ দুই শিশুর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। পাশাপাশি পুলিশ আসল ঘটনা জানার চেষ্টা করছে।’