তাৎক্ষণিকভাবে আহত শ্রমিকদের মধ্যে পাঁচজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তাঁরা হলেন ঝালকাঠির বাসচালক কালু হাওলাদার (৪৫), সুপারভাইজার আবুল কালাম (৩৫), চালকের সহকারী শাওন হাওলাদার (২৫), সাগর মিয়া (২০) ও মো. জাহিদ (১৯)। আহত শ্রমিকেরা ঝালকাঠি ও বরিশালের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ঝালকাঠির বাসশ্রমিকদের অভিযোগ, রূপাতলীর বাস মালিক সমিতি ও সেখানকার শ্রমিকেরা নানাভাবে তাঁদের ওপর অত্যাচার চালান। প্রায়ই শ্রমিকদের মারধরের ঘটনা ঘটছে। এমন অবস্থায় চালক-শ্রমিকদের নিরাপত্তার অভাবে বাস চলাচল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে।

ঝালকাঠি বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির যুগ্ম সম্পাদক নাসির উদ্দিন বলেন, শ্রমিকদের সঙ্গে যে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে, সেটি সমাধানের চেষ্টা চলছে। বিষয়টির সমাধান হলে আবার বাস চলাচল শুরু হবে।

হঠাৎ বাস ধর্মঘট ডাকায় সাধারণ যাত্রীরা দুর্ভোগে পড়েছে। এ পথের যাত্রী তপন সরকার নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তা বলেন, এ রুটের বাসমালিক ও শ্রমিকেরা বিভিন্ন সময় নানা অজুহাতে ধর্মঘটের ডাক দিয়ে যাত্রীদের দুর্ভোগে ফেলেন। তাঁরা যাত্রীদের সমস্যার কথা ভাবেন না, শুধু নিজেদের স্বার্থ নিয়েই থাকেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন