নিহত মোবারক হোসেনের প্রতিবেশী ও সিংহশ্রী ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য হাদিউল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, কয়েক দিন আগেই মোবারক হোসেন বিদেশ থেকে বাড়ি ফেরেন। বাড়ির পাশের জমির আলে গাছ লাগানো নিয়ে প্রতিবেশী মো. হাদিউল ও রফিকুলের সঙ্গে আজ সকালে তাঁর বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে মো. হাদিউল ছুরি দিয়ে মোবারককে আঘাত করে বলে প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকটি কিশোর তাঁকে জানিয়েছে।

ইউপি সদস্য হাদিউল ইসলাম আরও বলেন, ওই কিশোরদের কাছ থেকে খবর পেয়ে তিনি ও আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে যান। মোবারক হোসেনকে ঘটনাস্থলে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন তাঁরা। তাঁকে একটি পিকআপ ভ্যানে করে পার্শ্ববর্তী শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। হাসপাতালে পৌঁছার পর চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত মো. হাদিউলের ব্যবহৃত মুঠোফোন নম্বরে কল দিলে তা বন্ধ পাওয়া যায়। তাঁর বাড়িতেও কাউকে পাওয়া যায়নি। সে জন্য অভিযুক্ত হাদিউলের বক্তব্য নেওয়া যায়নি।

কাপাসিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এফ এম নাসিম বলেন, পুলিশ এ ঘটনার খবর পেয়েছে। অভিযোগ পেলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।