দুর্ঘটনার দুজন প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা নওগাঁ ট্রাভেলসের একটি বাস ঘোগা সেতুর ওপর দিয়ে নওগাঁ যাচ্ছিল। এ সময় বিপরীতমুখী ঢাকাগামী কালিয়াকৈর সার্ভিসের একটি বাসের সঙ্গে ওই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই দুজন নিহত হন। সেতুর ওপর দুর্ঘটনার কারণে মহাসড়কের দুই পাশে অন্তত আধা ঘণ্টা যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে।

দুর্ঘটনার পর উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের দল ঘটনাস্থলে এসে উদ্ধার তৎপরতা চালায়। পরে হাইওয়ে পুলিশের তৎপরতায় মহাসড়কে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

default-image

শেরপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা সিদ্দিকুর রহমান বলেন, সেতুর ওপর থেকে দুটি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে তাঁদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ ছাড়া দুর্ঘটনায় উদ্ধার হওয়া অন্তত ১০ জনকে দ্রুত চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। দুর্ঘটনায় নিহত ব্যক্তিরা কোন বাসের যাত্রী ছিলেন, তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

শেরপুর হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক রোজিবুল ইসলাম বলেন, বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালানোর কারণেই ঘোগা সেতুর ওপর এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। দুর্ঘটনার পর উভয় গাড়ির চালক ও চালকের সহকারীরা দ্রুত সটকে পড়েছেন। দুর্ঘটনায় নিহত ব্যক্তিদের পরিচয় শনাক্তের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। দুর্ঘটনাকবলিত দুটি বাস পুলিশি হেফাজতে রয়েছে। এ ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন