বিষয়টি আজ সোমবার দুপুরে প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেন ঢাকা উত্তর ডিবি পুলিশের পরিদর্শক (ওসি) রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ। তিনি জানান, গ্রেপ্তার ব্যক্তির নাম হাদিসুর রহমান (৪২)। তাঁর গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার কাতিয়ারচর গ্রামে। তিনি ঢাকার রূপনগর এলাকায় বসবাস করেন। এ ঘটনায় বন্য প্রাণী পাচারের অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় মামলা করেছে ডিবি।

ডিবি পুলিশ জানিয়েছে, হাদিসুর রহমান একজন বন্য প্রাণী পাচারকারী। এর আগেও তাঁর বিরুদ্ধে এ ধরনের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। কৌশলে বিপন্ন ও বিলুপ্তপ্রায় প্রাণী সংগ্রহ করে দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করেন।

সাভার ডিবি পুলিশের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রাত সাড়ে সাতটার দিকে আশুলিয়ার নবীনগর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়া সাতক্ষীরাগামী দূরপাল্লার যাত্রীবাহী একটি বাসে অভিযান পরিচালনা করে ডিবি পুলিশের সাভার কার্যালয়ের একটি দল। এ সময় বাসের যাত্রী হাদিসুরের কাছ থেকে খাঁচায় বন্দী অবস্থায় উল্লুক ও বানর উদ্ধার করা হয়। এ সময় হাদিসুরকে আটক করে ডিবি পুলিশ। প্রাণী দুটিকে বর্তমানে ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয় সাভারে রাখা হয়েছে।

ঢাকা উত্তর ডিবির পরিদর্শক (ওসি) রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ ওরফে বিপ্লব বলেন, প্রাণী দুটিকে চট্টগ্রামের রিয়াজুদ্দিন বাজার থেকে সাতক্ষীরার উদ্দেশে নিয়ে যাচ্ছিলেন বলে ওই ব্যক্তি স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় বন্য প্রাণী পাচারের অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় মামলা হয়েছে। তাঁকে আশুলিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। আর প্রাণী দুটিকে বন অধিদপ্তরের ঢাকা বিভাগীয় বন্য প্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ দপ্তরের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।