ভ্রাম্যমাণ আদালত ও পরীক্ষাকেন্দ্র সূত্রে জানা যায়, আজ সকাল ১০টায় মাদারীপুর সরকারি কলেজ কেন্দ্রসহ জেলার আরও চারটি কেন্দ্রে একযোগে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের অধীন পরিদর্শক, পরিবার কল্যাণ সহকারী ও অফিস সহায়ক পদে লিখিত নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এতে ২ হাজার ৮৭৫ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেন। এর মধ্যে পরীক্ষা চলাকালীন মাদারীপুর সরকারি কলেজ কেন্দ্রে ইউসুফ সরদার নামের এক পরীক্ষার্থী মুঠোফোন ব্যবহার করেন। বিষয়টি নজরে এলে তৎক্ষণাৎ কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা পরীক্ষক ইউসুফকে বহিষ্কার করেন।

পরে ইউসুফের সঙ্গে থাকা মুঠোফোনটি জব্দ করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ওই কেন্দ্রের দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাহমুদুল হাসান। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ইউসুফকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

মাহমুদুল হাসান প্রথম আলোকে বলেন, পরীক্ষা চলাকালীন মুঠোফোন ব্যবহার করা দণ্ডনীয় অপরাধ। ওই পরীক্ষার্থী সরকারঘোষিত নির্দেশনা লঙ্ঘন করেছেন। তাৎক্ষণিকভাবে ওই পরীক্ষার্থী তাঁর অপরাধ স্বীকার করেছেন। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাঁকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।