সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম উপস্থিত আছেন। সম্মেলনের প্রধান বক্তা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক এ কে এম আফজালুর রহমান। এ ছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে খাদ্যমন্ত্রী ও নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাধন চন্দ্র মজুমদার, নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল মালেক, সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন জলিল, ছলিম উদ্দিন তরফদার, আনোয়ার হোসেন প্রমুখ উপস্থিত আছেন।

সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই নওগাঁয় আওয়ামী লীগের এই সহযোগী সংগঠনটির নতুন নেতৃত্বে কারা আসছেন, তা নিয়ে শুরু হয় গুঞ্জন। আজ কাউন্সিল অধিবেশনে প্রত্যক্ষ ভোটে অথবা কাউন্সিলরদের মতামতের ভিত্তিতে নতুন নেতৃত্ব গঠনের মধ্য দিয়ে এই গুঞ্জনের অবসান হতে পারে।

সম্মেলনে সভাপতি ও সম্পাদক পদে একাধিক প্রার্থীর নাম শোনা যাচ্ছে। পদপ্রত্যাশী নেতাদের সমর্থনে ব্যানার-ফেস্টুন, বিলবোর্ডে সম্মেলনস্থল, শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও বিভিন্ন মোড় ছেয়ে গেছে। সম্মেলন উপলক্ষে আজ রোববার সকাল থেকেই জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে দলীয় নেতা-কর্মীরা ব্যানার-ফেস্টুনসহ মিছিল নিয়ে সম্মেলনস্থলে আসতে শুরু করেন।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, সভাপতি পদে সাতজন এবং সাধারণ সম্পাদক পদে আটজন পদপ্রত্যাশী আছেন। সভাপতি পদপ্রত্যাশীরা হলেন—শাহজাহান সিরাজ, রাসেল আহম্মেদ, রুবেল আহমেদ, সারোয়ার তামজিদ, জাহাঙ্গীর আলম, আবদুস সবুর ও আবদুল বারি। সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশীরা হলেন—নূর মোহাম্মদ, রাহাদ ইমতিয়াজ, হায়দার হাবিব, তরিকুল ইসলাম, তালুকদার আজম, আমিনুল ইসলাম, সোহেল রানা ও মানিক খান। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে পদপ্রত্যাশীরা সবাই জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের নেতা।

সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ও নওগাঁ জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবুল কালাম আজাদ বলেন, সমঝোতা না হলে কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটে নেতৃত্ব নির্বাচিত হবে। সম্মেলনে ৩৪২ জন কাউন্সিলর ভোট দেবেন।