এ সময় ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা হামলার প্রতিবাদ জানান এবং সরকারের পদত্যাগ দাবি করে বিভিন্ন স্লোগান দেন। বিক্ষোভ শেষে দলীয় কার্যালয়ের সামনে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা বলেন, এই গণবিরোধী সরকার ক্ষমতাকে টিকিয়ে রাখতে এখন বিএনপির নেতা-কর্মীদের শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ কর্মসূচিতে পুলিশ ও দলীয় সন্ত্রাসীদের দিয়ে হামলার পথ বেছে নিয়েছে। গুলি চালিয়ে হত্যা করা হচ্ছে। সরকারের সময় ফুরিয়ে আসছে। দমন-পীড়ন, হত্যা, নির্যাতন চালিয়ে বিএনপি নেতা-কর্মীদের দাবিয়ে রাখা যাবে না। এক দফার আন্দোলন, এই সরকারের পতন না হওয়া পর্যন্ত রাজপথে দুর্বার আন্দোলন চলবে।

ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা হামলার প্রতিবাদ জানান এবং সরকারের পদত্যাগ দাবি করে বিভিন্ন স্লোগান দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রদলের সহসভাপতি লিয়ন খান, মোরশেদ আল-আমিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. তানজিল প্রমুখ।

আজ বেলা তিনটার দিকে মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতা-কর্মীদের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৮০ জন আহত হয়েছেন। সংঘর্ষের খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে আহত হয়েছেন দুজন সংবাদকর্মী।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন