এদিকে বড় বাগাড় ধরার খবর ছড়িয়ে পড়লে তা দেখতে আশপাশের এলাকা থেকে নানা বয়সী মানুষ মনিরের বাড়িতে ভিড় জমান।

মনির হোসেন বলেন, ‘আমরা মাঝেমধ্যেই শখ করে মহানন্দা নদীতে মাছ ধরতে যাই। আজ যে মাছটি ধরেছি, সেটি আমরা বিক্রি করিনি। মাছটি কেটে ২০ জন মিলে ভাগ করে নিয়েছি।’

এর আগে সব৴শেষ ৫ জুলাই বাংলাবান্ধা ইউনিয়নের দক্ষিণ কাশিমগঞ্জ এলাকায় মহানন্দা নদীতে ৩৫ কেজি ওজনের একটি বাগাড় মাছ ধরা পড়েছিল।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন