রেহানার ভাষ্য, তিনি গতকাল বিকেলে এক আত্মীয়ের বাড়িতে যান। বাড়িতে ছিলেন তাঁর শাশুড়ি, ভাশুর ও জা। রাত আটটার দিকে সাত থেকে আটজনের একটি ডাকাত দল তাঁদের ঘরে ঢুকে পড়ে। এ সময় তাঁর ভাশুরের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে জিম্মি করে ফেলে সবাইকে। এরপর বিভিন্ন ঘর ভাঙচুর করে লুটে নেয় ৩ লাখ টাকা, ২৫ ভরি সোনা ও প্রায় ৫০০ ইউএস ডলার। ডাকাতি শেষে সবাইকে ভেতরে রেখে বাইরে থেকে মূল ফটকে তালা লাগিয়ে চলে যায় ডাকাতেরা। পরে ৯৯৯-খবর দিলে পুলিশ এসে তাঁদের উদ্ধার করে।

রেহানা বলেন, ‘আমি ফোনে ডাকাতির খবর পেয়ে দ্রুত বাড়ি আসি। এসে দেখি বাইরে থেকে তালা লাগানো। পরে জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ কল করে পুলিশে খবর দিলে তারা এসে সবাইকে উদ্ধার করে। ডাকাতেরা মালামাল লুটসহ ঘরে ব্যাপক ভাঙচুর চালিয়েছে।’

কাপাসিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. নাহিদ বলেন, এখানে পূর্বশত্রুতার একটি বিষয় আছে। ভুক্তভোগী পরিবার দুজনের নাম উল্লেখসহ থানায় একটি মামলা করেছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন