এর আগে ২০২১ সালের ২১ জুলাই শরীফ আহম্মেদ নামের এক অটোরিকশাচালক মোখলেছুরের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগে মামলা করেন। শরীফ আহম্মেদের বাড়ি উপজেলার বল্লা ইউনিয়নের মমিননগর গ্রামে।

মামলা ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, চার লাখ টাকার বিনিময়ে শরীফ আহম্মেদকে বিদেশে পাঠানোর জন্য আশ্বাস দেন আওয়ামী লীগ নেতা মোখলেছুর রহমান। এই আশ্বাসে শরীফ আহম্মেদ তাঁর অটোরিকশা বিক্রি করে ও জমি বন্ধক রেখে মোখলেছুর রহমানকে চার লাখ টাকা দেন। টাকা পাওয়ার পর মোখলেছুর নানা টালবাহানা শুরু করেন। একপর্যায়ে শরীফকে বিদেশে পাঠানোর ব্যাপারে অপারগতা প্রকাশ করেন মোখলেছুর। টাকা ফেরত দিতে পারবেন না বলে জানিয়ে দেন তিনি। টাকা ফেরত পাওয়ার বিষয়ে স্থানীয়ভাবে একাধিক সালিস হলেও বিষয়টির কোনো সুরাহা হয়নি। পরে গত বছরের ২১ জুলাই মোখলেছুরের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগে মামলা করেন শরীফ।

শরীফ আহম্মেদ বলেন, বিদেশে যাওয়ার স্বপ্ন নিয়ে তিনি মোখলেছুর রহমানকে টাকা দিয়েছিলেন। কিন্তু মোখলেছুর তাঁর সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। এখন টাকা ফেরত দিচ্ছেন না।

বাদীপক্ষের আইনজীবী মাঈনুল ইসলাম বলেন, মামলার পর আদালত মোখলেছুর রহমানের প্রতি সমন জারি করেছিলেন। আজ মোখলেছুর আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে বিচারক জামিন নামঞ্জুর করে তাঁকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।