হুমায়রার বাবা দুলাল মিয়া জানান, গত সোমবার তাঁর বড় ছেলে সজীব মিয়ার স্ত্রী বৈশাখী আক্তারের সঙ্গে ছোট মেয়ে হুমায়রা বাইরে যায়। এরপর আর বাসায় ফিরে আসেনি। তাঁরা আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে এবং আশপাশে সন্ধান করেও হুমায়রাকে পাননি। পরবর্তীকালে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। আজ সকালে পাশের নয়াগাঁও গ্রামের পরিত্যক্ত এক বাগানে এক ব্যক্তি গরুর জন্য ঘাস কাটতে যান। তিনি সেখানে মাটিতে পুঁতে রাখা অবস্থায় লাশটি দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে। এ সময় সন্দেহভাজন হিসেবে তাঁর ছেলে সজীব মিয়া, পুত্রবধূ বৈশাখী আক্তার ও সজীবের শাশুড়ি সেতারা বেগমকে আটক করে থানা-পুলিশ।

সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান জানান, ধারণা করা হচ্ছে, শিশুটি হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন